নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশীপ জেতায় বাংলাদেশ দলকে হিল উইমেন্স ফেডারেশন-এর অভিনন্দন

0
212

রূপসীবাংলা৭১

নেপালে অনুষ্ঠিত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপা জেতায় বাংলাদেশ টিমকে এবং বিশেষভাবে পার্বত্য চট্টগ্রামের কৃতি খেলোয়ার রূপনা চাকমা, মনিকা চাকমা, ঋতুপর্ণা চাকমা, আনুচিং মগিনী, আনাই মগিনী ও তাদের কোচ কৃষ্ণা চাকমাকে হিল উইমেন্স ফেডারেশন প্রাণঢালা অভিনন্দন জানিয়েছে।

নারী ফুটবলাররা পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারা দেশের মুখ উজ্জ্বল করেছেন মন্তব্য করে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভানেত্রী নীতি চাকমা ও সাধারণ সম্পাদক রিতা চাকমা আজ শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২) সংবাদ মাধ্যমে দেয়া এক বার্তায় বলেছেন, ‘বৈরী প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও রূপনা-মনিকা-আনুচিং-আনাইরা যে সাফল্য দেখিয়েছেন তাতে পাহাড়ি নারীদের সুপ্ত প্রতিভার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে।’

উপযুক্ত পরিবেশ ও প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধা পেলে শুধু ফুটবল বা ক্রীড়াঙ্গনে নয়, অন্যান্য চ্যালেঞ্জিং পেশায়ও নারীরা নিজেদের কৃতিত্ব প্রদর্শন করতে সক্ষম হবে এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের জাতীয় অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই সংগ্রামেও বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের যোগ্যতাসম্পন্ন নারী আবির্ভূত হবেন বলে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের নেতৃদ্বয় দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

সাফ গেমস-এ শিরোপা জিতে জাতীয়ভাবে সম্মান লাভ, বিজয়ের আনন্দ ক্ষণিকের মাত্র মন্তব্য করে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের নেতৃদ্বয় আরও বলেছেন, ‘রূপনা চাকমার জন্য সরকারিভাবে বাড়ি নির্মাণ করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়া হলেও পরিহাসের বিষয় হচ্ছে, দেশের সংবিধানে রূপনা চাকমা-আনু চিংদের জাতিসত্তার স্বীকৃতি নেই। রূপনাদের পরিবার পরিজন আত্মীয়স্বজন প্রতিনিয়ত নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে, রাষ্ট্রীয় বাহিনী কর্তৃক নিগৃহীত লাঞ্ছিত হয়, সেটলার কর্তৃক বাড়িঘর বাস্তুভিটা হারানোর ভয়ে সন্ত্রস্ত থাকে।

সমস্ত প্রতিকূলতা ডিঙ্গিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রীড়াঙ্গনে নারীরা যেভাবে কৃতিত্বের সাক্ষর রেখে সবার মুখে উজ্জ্বল করেছে, অনুরূপভাবে বাপ-দাদার বাস্তুভিটা রক্ষা তথা পূর্ণস্বায়ত্তশাসন প্রতিষ্ঠার লড়াইয়েও এগিয়ে এসে অধিকারহারা জাতির নিরাপদ ভবিষ্যত রচনায় সাহসিকতাপূর্ণ ভূমিকা রাখার জন্য ক্রীড়া অনুরাগী কিশোরী-তরুণীদের প্রতি জোর আহ্বান জানিয়েছে হিল উইমেন্স ফেডারেশন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে